Hindusthan Samachar
Banner 2 गुरुवार, मार्च 21, 2019 | समय 04:42 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

হিঙ্গলগঞ্জ-র নেবুখালিতে তিন নদীর মোহনায় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে চলছে পারাপার

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 17 2019 2:21PM
হিঙ্গলগঞ্জ-র নেবুখালিতে তিন নদীর মোহনায় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে চলছে পারাপার
বসিরহাট, ১৭ মার্চ (হি.স.) : নদী দিয়ে ঘেরা ছোট ছোট দ্বীপ নিয়ে গঠিত উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাট মহকুমার হিঙ্গলগঞ্জ ব্লক। ব্লকের মোট নটি পঞ্চায়েত-র মধ্যে কালিতলা, গোবিন্দকাটি, যোগেশগঞ্জ, সাহেবখালি, দুলদুলি এই পাঁচটি পঞ্চায়েত নিয়ে তৈরি হয়েছে একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। প্রায় কয়েক হাজার মানুষের বাস এই দ্বীপে। প্রত্যন্ত সুন্দরবন লাগোয়া এই দ্বীপে পৌঁছাতে মূল বাধা নদী পারাপার। নেবুখালি, দুলদুলি ও ভান্ডারখালী এই তিন পাড়ের মাঝে রয়েছে কালিন্দী, ডাসা ও রায়মঙ্গল নদী। তিন নদী মোহনা পেরিয়ে পৌঁছাতে হয় সুন্দরবনের জঙ্গলে। প্রত্যন্ত সুন্দরবন এলাকার মানুষকে মহকুমা শহর বসিরহাট ও বসিরহাট মহকুমা আদালত, বসিরহাট জেলা হাসপাতাল সহ বিভিন্ন প্রশাসনিক কাজে আসতে এই নদী পেরিয়ে আসতে হয় সাধারণ মানুষকে। হিঙ্গলগঞ্জ মহাবিদ্যালয়ে যেতে এই নদী পেরিয়ে আসতে হয় পাঁচটি পঞ্চায়েতের ছাত্র-ছাত্রীদের। একই সঙ্গে সুন্দরবনকে খুব তাছেথেকে দেখা যায় হিঙ্গলগঞ্জের সমশেরনগর থেকে। সেক্ষেত্রে পর্যটকদের সুন্দরবনে পৌঁছাতে নেবুখালির মোহনায় নদী পারের সমস্যায় পড়তে হয় পর্যটকদের। পর্যটকদের জন্য নেবুখালি-দুলদুলির কালিন্দী নদী উপর ভেসেলে পারাপারের ব্যবস্থা থাকলেও তা অনিয়ম। আর সাধারণ যাত্রীদের পারাপারের ক্ষেত্রে অস্বাভাবিক মূল্য চোকাতে হয় যাত্রীদের। হিঙ্গলগঞ্জ ব্লকে বিচ্ছিন্ন দ্বীপের বাসিন্দাদের বসিরহাট মহকুমা শহরের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে বাধা হয়েছিল নেবুখালি মোহনা, কাটাখাল ও হাসনাবাদ নদী। বাম আমলে কাটাখাল নদীর উপর সেতু তৈরীর পরে ২০০৬ সালে হাসনাবাদ নদীর উপর সেতুর কাজে হাত দিয়েছিল তৎকালীন রাজ্য সরকার। দীর্ঘ ১৩ বছর পর বর্তমান রাজ্য সরকারের উদ্যোগে সম্প্রতি খুলে দেওয়া হয়েছে হাসনাবাদ নদীর উপর বনবিবি সেতু। যার ফলে হিঙ্গলগঞ্জ ব্লকে মানুষের সামান্য স্বস্তি ফিরলেও এখনো অস্বস্তি রয়েই গেছে হিঙ্গলগঞ্জ ব্লক এর পাঁচটি পঞ্চায়েতের বাসিন্দাদের। হিঙ্গলগঞ্জ ব্লকের বিচ্ছিন্ন এই দ্বীপের মানুষের সমস্যা নিয়ে ব্লকের প্রাক্তন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য মোহন মন্ডল জানান, ''প্রত্যন্ত সুন্দরবন এলাকার মানুষের মাথার উপরে মরার উপর খাড়ার ঘা এর মত আঘাত করে চলেছে নদী পারাপার এর সমস্যা। নদী পারাপারের ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত নৌকা না থাকায় সমস্যায় পড়তে হয় যাত্রীদের। যার ফলে ভরসা করে থাকতে হয় প্রাইভেট নৌকার উপরে। আর সেখানেও লাগামহীন যাত্রী বহনের ফলে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করতে হয় যাত্রীদের। কোনও রোগী বসিরহাট জেলা হাসপাতালে নিয়ে যেতে হলে আরও বেশী অসুস্থ হয়ে পড়েন রোগী''। নদী পারাপারের সমস্যার বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনকে বারংবার জানিয়েও কোনো ফল হয়নি বলে অভিযোগ তোলেন তিনি। যদিও খুব শিগগিরই এই সমস্যা মিটতে পারে বলে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বক্তব্যে আশার আলো দেখছেন সাধারণ মানুষ। গত কয়েকদিন আগে হাসনাবাদ বনবিবি সেতু উদ্বোধন করতে এসে আগামী দিনে হিঙ্গলগঞ্জ নেবুখালি দুলদুলি ও ভান্ডার খালি থে তিন নদীর মোহনা উপরে ব্রিজ তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে বলে আশ্বাস দেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। হিন্দুস্থান সমাচার /পরিমল/ সঞ্জয়
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image