Hindusthan Samachar
Banner 2 सोमवार, दिसम्बर 10, 2018 | समय 11:30 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বহির্বঙ্গের বইকে বাংলা অকাদেমী পুরষ্কৃত করুক, আর্জি সাহিত্যসভায়

By HindusthanSamachar | Publish Date: Dec 8 2018 8:49PM
বহির্বঙ্গের বইকে বাংলা অকাদেমী পুরষ্কৃত করুক, আর্জি সাহিত্যসভায়
কলকাতা, ৮ ডিসেম্বর (হি. স.): বহির্বঙ্গ বাঁচলে, বাংলা ভাষা বাঁচবে। শনিবার সন্ধ্যায় এক সমাবেশে এই আবেদন জানান ভিন রাজ্যের বাঙলা ভাষার কিছু সেবক। এই সঙ্গে সভায় প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়, বহির্বঙ্গের বই ও পত্রিকাকেও বাংলা অকাদেমী পুরষ্কৃত করুক। কারণ, বহির্বঙ্গে বাংলা ভাষা নিয়ে চর্চা আগের চেয়ে কমে গেলেও এখনও হচ্ছে। অনুপ্রেরণা বা স্বীকৃতি বহির্বঙ্গের বাংলা চর্চাকে উজ্জীবিত করবে। জোড়াসাঁকোয় দ্বারকানাথ ঠাকুর মঞ্চে ‘সাগ্নিক’ আয়োজিত আন্তর্জাতিক কবিতা উৎসবে ‘যতদূর বাংলা ভাষা’ শীর্ষক এই আলোচনার আয়োজন করা হয়। এতে অংশ নেন ছত্তিশগড়ের সমরেন্দ্র বিশ্বাস, ঝাড়খন্ডের দুটি পৃথক শহরের দোলা বাজপেয়ী (জামশেদপুর) এবং চন্দন সরকার (ধানবাদ), ওডিশার দীপক হালদার, মধ্যপ্রদেশের বিশ্বজিৎ বাগচি, উত্তরপ্রদেশের বাপি চক্রবর্তী, দিল্লির দিলীপ ফৌজদার এবং মঞ্জু সরকার, মেঘালয়ের বিশ্বজিৎ নন্দী, ত্রিপুরার শ্যামল ভট্টাচার্য প্রমুখ। সভায় অংশগ্রহণকারীদের অনেকে স্থানীয় পত্রিকার সম্পাদক। ‘সহস্র বাধা উপেক্ষা করে‘ পত্রিকা প্রকাশ করে চলেছেন। যাঁরা তা করছেন না, নিয়মিত সাহিত্যসভা বা চর্চা করেন। ‘ডায়াস্পোরা’-র কথা উল্লেখ করে তাঁরা এ দিন অনুযোগ করেন, বাংলা সাহিত্যচর্চা ক্রমেই কলকাতাকেন্দ্রিক হয়ে পড়েছে। এর পর সভার অন্যতম উদ্যোক্তা চন্দ্রশেখর ভট্টাচার্য মঞ্চে বলেন, কে বলতে পারেন বহির্বঙ্গের এই সাহিত্যসেবকদের মধ্যে থেকে আবার আমরা কোনও বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় বা সতীনাথ ভাদুড়িকে পাব কি না। ভিন রাজ্যে অন্তরালে থাকা সাহিত্যিক বা সাহিত্যসেবক খুঁজে বার করতে উদ্যোগী হোক বাংলা অকাদেমী। আলোচনার সংযোজক তন্ময় বীর বলেন, কাটিহারে মাত্র তিনটি কলেজে বাংলা পড়ানো হত। আগামী বছর থেকে ওখানে আর বাংলা পড়ানো হবে না। কারণ, এবার ওই রাজ্যে পশ্চিমবঙ্গের পর্ষদের শেষ পরীক্ষা। সারা ভারতে যাঁরা বাংলাচর্চা ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন, বিশেষ দৃষ্টিকোণ থেকে তাঁদের দেখুন। কারণ, এঁরা বিস্তৃত বঙ্গের প্রতিনিধি। যদি এই বহির্বঙ্গ স্পন্দিত হয়ে উঠতে পারে, তবেই বেঁচে থাকবে বাংলা ভাষা। হিন্দুস্থান সমাচার/ অশোক
image