Hindusthan Samachar
Banner 2 बुधवार, दिसम्बर 12, 2018 | समय 14:46 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

শাস্ত্রীয় বিধান অনুযায়ী ডিমাসা জনগোষ্ঠীর অনাড়ম্বর দুর্গাপুজো হিড়িমডি মন্দিরে

By HindusthanSamachar | Publish Date: Oct 13 2018 10:03PM
শাস্ত্রীয় বিধান অনুযায়ী ডিমাসা জনগোষ্ঠীর অনাড়ম্বর দুর্গাপুজো হিড়িমডি মন্দিরে
হাফলং (অসম), ১৩ অক্টোবর, (হি.স.) : সুরতনগর হিড়িমডি মন্দিরের পূজা হচ্ছে শৈলশহর হাফলঙের মধ্যে অন্যতম পুজো। দীর্ঘদিন থেকে এই পুজো পরিচালিত হয়ে আসছে ডিমাসা জনগোষ্ঠীর মানুষের দ্বারা। আধুনিকতার যুগে যেখানে দুর্গাপুজোয় থিমের ছড়াছড়ি। প্রতিযোগিতা, আড়ম্বর ও চাকচিক্য প্রধান্য পায়। সেখানে ব্যতিক্রম সুরতনগর হিড়িমডি মন্দিরের দুর্গাপুজো। কারন সম্পূর্ণ শাস্ত্রীয় বিধান, নিয়মনীতি মেনে কোনও আড়ম্বর ছাড়া এখানে পুজো হয়। শাস্ত্রীয় বিধান অনুযায়ী মূর্তি গড়ে পুজোয় সম্পূর্ণ সাত্ত্বিকতা বজায় রেখেই সম্পূর্ণ করা হয় পুজো। পুজোর তিনদিনই প্রচুর ভক্তের সমাগম ঘটে হিরিমডি মন্দিরে। পূজোর তিনদিন ব্যবস্থা করা হয় মহাপ্রসাদের। দীর্ঘদিন থেকে সুরতনগর হিড়িমডি মন্দিরের পুজো হয়ে আসছে সুরতনগর এলাকার বাসিন্দাদের কাছ থেকে চাঁদা সংগ্রহ করে। সকলের একান্ত সহযোগিতায় এই পুজো অনুষ্ঠিত হয় বলে জানান পূজো উদ্যোক্তারা। দশমীতে শহরের সব পুজো কমিটির মূর্তি নিরঞ্জন করা হয় হাফলং লেকে। কিন্তু ব্যতিক্রম হিড়িমডি মন্দির। হিড়িমডির পুজো কমিটির সদস্যরা বিসর্জন পর্ব সারেন আলাদা ভাবে হাফলং শহর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরবর্তী দিয়ুং নদীতে। উদ্যোক্তাদের বক্তব্য, স্রোতের জলে বিসর্জন দেওয়ার বিধান রয়েছে শাস্ত্রে। তাই এই প্রথা মেনেই ওই পুজো কমিটির সদস্যরা দিয়ুং নদীর জলেই বিসর্জন পর্ব শেষ করেন। তা আবার দিনের আলোয় শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে বিসর্জন পর্ব শেষ করে ফেলেন সুরতনগর হিড়িমডি মন্দির পুজো কমিটির সদস্যারা। এদিকে, আর মাত্র একদিন। তার পরই দেবী দুর্গার বোধন পর্ব। কিন্তু গত তিনদিনের বৃষ্টির দরুন পূজার প্রস্তুতি নিয়ে কিছুটা সমস্যায় পড়েছে বিভিন্ন পুজো কমিটি। তিতলির জেরে নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়ে উত্তরপূর্বের বিভিন্ন রাজ্যে প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে। আগামীকাল রবিবারও কিছুটা বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সোমবার থেকে আকাশ পরিষ্কার হবে বলে আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। হিন্দুস্থান সমাচার / নিরুপম / এসকেডি
image