Hindusthan Samachar
Banner 2 गुरुवार, नवम्बर 15, 2018 | समय 18:35 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

অসমে জিহাদি ঘাঁটি, বিধায়ক শিলাদিত্য দেবের আশঙ্কা সত্য প্রমাণিত

By HindusthanSamachar | Publish Date: Sep 16 2018 8:14PM
অসমে জিহাদি ঘাঁটি, বিধায়ক শিলাদিত্য দেবের আশঙ্কা সত্য প্রমাণিত
গুয়াহাটি, ১৬ সেপ্টেম্বর (হি.স.) : অবশেষে বিধায়ক শিলাদিত্য দেবের আশঙ্কাই সত্য প্রমাণিত হল। অসমের বহু যুবক মৌলবাদী সংগঠনে যোগ দিয়েছে বলে বহুদিন আগে থেকে উপর্যুপরি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে চলেছিলেন তিনি। তাঁর এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে বিরোধীরা বেজায় শোরগোলও তুলেছিলেন। এবার সেই সম্ভাবনার কথা সরকারিভাবে স্বীকার করেছেন খোদ রাজ্যের পুলিশ-প্রধান কুলধর শইকিয়াও। উত্তরপ্রদেশের কানপুরে অ্যান্টি টেরোরিস্ট স্কোয়াডের হাতে হোজাইয়ের ছেলে, ইসলামিক সন্ত্রাসবাদী হিজবুল মুজাহিদিনের কট্টর সদস্য কমরুজ্জামান এবং পরবর্তীতে তার একান্ত ঘনিষ্ঠ বিশ্বস্ত চার সহযোগীকে হোজাই ও গুয়াহাটিতে গ্রেফতারের পর বিধায়ক শিলাদিত্য দেবের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়েছিল। হোজাইয়ের বিধায়ক শিলাদিত্য দেব বর্তমানে দিল্লিতে। আজ রবিবার ফোনে তাঁর কাছে এ সম্পর্কে কিছু জানতে চাইলে স্বভাবসুলভ ভাষায় বলেন, ‘আমি বরাবর এ কথা বলে আসছিলাম। রাজ্যের সচেতন জনসাধারণ থেকে শুরু করে বিভিন্ন দল-সংগঠন, এমন-কি অসমে জিহাদি তৎপরতা বেড়েছে বলে প্রশাসনকেও সতর্ক করে আসছিলাম। কেউ আমার কথা কানে তুলেনি।’ বলেন, ‘এখানে দিল্লিতে, অসম ভবনে অসমের কয়েকজন সাংবাদিক এ ব্যাপারে আমার বাইট নিতে এসেছিলেন। তাঁদেরও একই কথা বলেছি। বলেছি, যদি হোজাই, যমুনামুখে হিজবুলের জিহাদি থেকে থাকে তা হলে চর অঞ্চল এবং ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকায় কী হতে পারে ভেবে দেখা দরকার। ওই সব অঞ্চলে বহুরূপে ইসলামিক সন্ত্রাসবাদীরা তাদের নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছে। তারা এর আগে হরকত-উল মুজাহিদিন, জামাত-উল মুজাহিদিন বাংলাদেশ নামে রাজ্যের মুসলমান যুবকদের তাদের সংগঠনের সদস্য করে জিহাদি কার্যকলাপ চালিয়েছে। রাজ্যকে রক্তাক্ত করার ছক কষেছে এরা। এবার ঘাঁটি গেড়েছে হিজবুল। তাই চর অঞ্চল এবং বাংলদেশ সীমান্ত এলাকায় পুলিশ এবং রাজ্য ও কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে সক্রিয় হতে হবে। ওই সব এলাকায় ধড়পাকড় শুরু করতে হবে। নাশকতা সংগঠিত হওয়ার পর কেঁদে কুলকিনারা পাওয়া যাবে না।’ শিলাদিত্য বলেন, ‘অসম হল জিহাদিদের নিরাপদ করিডর। পাকিস্তান থেকে ঢাকা হয়ে নিরাপদে তারা অসমে প্ৰবেশ করতে পারে।’ প্রসঙ্গক্রমে তিনি কৃষক নেতা অখিল গগৈকেও ঠুকেছেন। বলেন, অসমিয়াদের বাংলাদেশি মুসলমান-প্ৰীতি ত্যাগ করতে হবে। নইলে সর্বনাশা দিনের বেশি বাকি নেই। বলেন, ‘এখন অসমের জাতীয় সংগঠনগুলোর মুখে রা নেই কেন? সর্ববিষষ়ে সোচ্চার অখিল গগৈ কোথায়? জানতে চেয়েছেন হোজাইয়ের বিজেপি বিধায়ক শিলাদিত্য দেব। হিন্দুস্থান সমাচার / এসকেডি / কাকলি
image